Share:

১. ফরাসী বিজ্ঞানী ল্যামার্ক বায়োলজি শব্দের প্রবর্তক।
২.  উদ্ভিত বিজ্ঞানের জনক থিওফ্রাসটাস।
৩. ডাচ বিজ্ঞানী লিউয়েন হুক অনুবীক্ষণ যন্ত্র আবিষ্কার করেন। তিনি সর্ব প্রথম ব্যাকটেরিয়া আবিষ্কার করেন।

৪.দ্বি-পদ নামকরনের প্রবর্তক সুইডিস বিজ্ঞানী ক্যারোলাস নিলিয়াস।
৫. জীবদেহের ক্ষুদ্রতম একক কোষ; আবিষ্কারক- রবার্ট হুক।
৬. বৃহত্তম কোষ উটপাখীর ডিম। ক্ষদ্রতম কোষ মাইকোপ্লাজমা।
৭. উদ্ভিদ কোষে কোষ প্রাচীর/ প্লাষ্টিড থাকে যা প্রাণী কোষে থাকে না।
৮. প্রাণীকোষে সেন্টেজেম থাকে  যা উদ্ভিদ কোষে থাকে না।
৯. জ্যান্থোফিলের বর্ণ হলুদ।
১০. কেরোটিনের বর্ণ-কমল/ লাল।
১১. জীবের বংশ গতির ধারক ও বাহক বলা হয়  ক্রোমোজোম  কে।
১২. জীবের চরিত্র নির্ধারক বলা হয় জীন কে।
১৩. উদ্ভিদের মূলে লিইকোপ্লাষ্ট থাকে।
১৪. জাইলেম মুল থেকে অঙ্গ প্রত্যঙ্গে পানি পৌছায়।
১৫. পাতায় উৎপাদিত খাদ্য ফ্লোয়েম উদ্ভিদের সর্বত্র পৌছায়।
১৬. আদি উদ্ভিদ বলা হয় ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস কে।
১৭. আম. জাঠাল,ডাল ও শিম জাতীয় উদ্ভিদ দ্বিবীজপ্রত্রী।
১৮. উদ্ভিদ খনিজ শোষন করে ব্যাপন প্রত্রিয়ায়।
১৯. উদ্ভিদ পানি শোষন কের অভিস্রবণ প্রক্রিয়ায়।
২০. পুষ্টি জন্য যে উদ্ভিদ অন্যের উপর নির্ভর করে তারা পরজীবী উদ্ভিদ।
২১. ব্যাকটেরিয়া,ছত্রাক দিয়ে অ্যান্টিবায়েটিক ঔষধ তৈরী হয়।
২২. মিউকর কে রুটির ছাতা বলা হয়।
২৩.মাশরুমে ম্যাসকারিন থাকে না বলে একে খাওয়া যায়।
২৪.ক্লোরেলা নামক শৈবাল নভচারীরা  নভোযানে ব্যাবহার করেন।
২৫.
26.Biology এর জনক গ্রিক দার্শনিক এরিষ্টটল। তাকে রাষ্ট্র বিজ্ঞানেরও জনক বলা হয়।
২৭. এরিষ্টটল এর অভিসন্ধর্ভ এর নাম Historia Animaliun
২৮. ইবন সিনা লিখিত চিকিৎসা শাসের নাম আলকানুন ফিত্তিব।
২৯. আন নাফিস রক্ত সঞ্চালন পদ্বতি সম্পর্কে সর্ব প্রথম ধারণা দেন।
৩০. উইলিয়াম হার্ভে ১৬২৮সালে রক্ত সঞ্চালন প্রত্রিয়া পরিপূর্ণ বর্ণনা করেন। তিনি শারীর বিদ্যার জনক।
৩১. মানব দেহের সবচেয়ে ক্ষুদ্রতম কোষ-অনুচক্রিকা।
৩২  মানব দেহের সবচেয়ে বৃহত্তম কোষ- নিউরন।
৩৩. ১৮৩১সালে নিউক্লিয়াস আবিষ্কার করেন রবার্ট ব্রাউন।
৩৪.একাধিক কোষের সমন্বয়ে একটি নিদিষ্ট কার্য নির্ধারিত হলে তাকে কলা হলে।
৩৫. বিজ্ঞানী গার্নার ও এ্যালার্ড-১৯২০সালে ফটোপিরিয়ডিজম আবিষ্কার করেন।
৩৬. বিজ্ঞানী T.D.Lysnk ১৯২০ সালে  ভার্নালাইজেশন আবিষ্কার করেন।
৩৭. ভাইসাস আবিষ্কার করেন রাবার্ট হুক/ আইভানোভাসকি/ ইকনুস/ জন মেয়ার।
৩৮. ছোট ও নরম গোড়া বিশিষ্ট উদ্ভিদকে বীরৎ উদ্ভিদ বলে।
৩৯.  শিম জাতীয় উদ্ভিদে রাইজোবিয়াম নামক ব্যাকটেরিয়া থাকে।
৪০. সিউডোমোনাস নামের মিথোজীবী ব্যাটেরিয়া  শিমের মূল মূলে থাকে।
৪১. জীব বিজ্ঞনের মৌলিক শাখ মোট ৮-টি।  (i)  Morphology (ii) Cytology (iii) Histology (iv) Physiology (v) Taxonomy (vi) Genetics (vii) Ecology (viii) Evolution
৪২. থিওফ্রাস্টাস উদ্ভিদ জগ॥কে ৪ভাগে ভাগ করেন: যথা- (i) Tree (ii) Shrubs (iii) Under Shrubs (iv) Herbs
৪৩. পরিণত লোহিত কণিকাতে নিউক্লিয়াস থাকেনা।
৪৪. ছত্রাকের কোষ প্রাচীর কাইটিন নির্মিত।
৪৫. ঔষধ শিল্প, সুগন্ধি ও রং উৎপাদনে লাইকেন ব্যাবহৃত হয়।
৪৬. টেরিডাফাইটার দেহাবশেষ থেকে খনিজ কয়লার আবির্ভাব হয় বলে অনুমান কর হয়।
৪৭. র্ফান পৃথিবীল সর্ব প্রাচীন উদ্ভিদ।
৪৮. উদ্ভিদের মূখ্য পুষ্টি উপাদান- ১০টি। (MgKCaFe Nice CHOPS)
৪৯. উদ্ভিদের গৌণ পুষ্টি উপাদান- ৬টি।
৫০.লাল আলোতে সালোকসংশ্লেষণ বেশী হয়। নীল ও সবুজ আলোতে সালোক সংশ্লেষন কম হয়।
৫১. স্ববাত শ্বসনে 34ATP (680 কিলো  ক্যালরি) শক্তি উৎপাদন হয়।
৫২. অবাত শ্বসনে 2ATP শক্তির উৎপাদন হয়।
৫৩. অক্সিন, জিব্বারেলিন, সাইটোকাইনিন বৃদ্ধি বর্ধক হরমোন।
৫৪. ইথিলিন ও ক্যালসিয়াম কার্বাইড ফল পাকানো বা পরিণতকরণে ব্যবহৃত হয়।
৫৫. পার্থেনোকার্পিক ফলে বীজ হয় না।
৫৬. কচুতে ক্যালসিয়াম অক্সালেট, কমলায় এসকরবিক এসিড, আমলকিতে অক্সলিক এসডি, অপেলে ম্যালিক এসিড, টমেটোতে ম্যালিক এসিড, তেঁতুল টারটারিক এসডি ও লেবুতে সাইট্রিক এসিড থাকে।
৫৭. পানের রসে মিউসিলেজ ও খেজুরের রসে ফ্রকটোজ থাকে।
৫৮. বাদামে থাকে ম্যাগনেশিয়াম, সয়াবিনে জেনিষ্টেইন, সরিষার তেলে ইরসিক এসিড,পেপেতে প্যাপেন, সূর্যমূখীতে লিনোলীক এসিড ,মরিচে ক্যাপসিন ও ধুতরায় ডেটুরিন থাকে।
৫৯. ঔষধী উদ্ভিদ হলো বাসক, পিঁয়াজম নিম, শেফালিকা, সিনকোনা, অর্জুন, ঘৃতকুমারী ইত্যাদি।
৬০. পিঁয়াজে/ রসুনের  ফাপা অংশে শুঙ্কপত্র।
৬১.পৃথিবীর সবচেয়ে বড়  ফুল র‌্যার্ফ্লোসিয়অ আরনল্ড।
৬২. পৃথিবীর সবচেয়ে বড় গাছ সিকুইডেনড্রন|(Sequadendron sempergirens)
৬৩.দ্রুত বিভাজিত হবে এপিথেলিয়াল কোষ।
৬৪.  পেনিসিলিয়াম এক ধরণের মৃতজীবী ছত্রাক।
৬৫.  কেওড়াতে  জরায়ুজ অঙ্কুরোদগম হয়।
৬৬. আদা রাইজোম,গোল আলু ,কন্দ, ফনিমনসা, পর্ণকান্ড, পিয়াজ, রসুন, কন্দাল কান্ড এর মাধ্যমে বংশ বিস্তার করে।
৬৭. সবচেয়ে বড় ঘাস বাঁশ|(Bambosa)
৬৮.সিসমোনষ্টি চলন এর  ফলে সামান্য স্পর্শে লজ্জাবতীয় পাতা গুটিয়ে যায়।
৬৯. একটি আদর্শ ফুলের ৫টি অংশ থাকে।
৭০. ক্লোরেলা ও ইউক্যালিপটস চামড়ার রোগ সৃষ্টি করে।
71.ICBN হলো নামকরণের আন্তর্জাতিক স্বীর্কৃত পদ্ধতি।
72.Artocarpus heterphyllus-জাতীয় ফল কাঁঠালের বৈজ্ঞানিকৎ নাম।
৭৩. Nymphea nouchelea-জাতীয় ফুল শাপলার বৈজ্ঞানিক নাম।