বাংলাদেশের ইতিহাস : ইউরোপের আগমন

Category: Bangladesh
Posted on: Tuesday, September 19, 2017

Share:

১. ১৪৮৭ সালে পর্তুগীজ নাবিক বার্থলোমিউ দিয়াজ প্রথম ভারত বর্ষের সমুদ্র পথ আবিষ্কার করেন। গোয়া, দমন, দিউ পর্তুগীজদের অধীনে ছিল।
২. পর্তুগীজ নাবিক ভাস্কো-দা-গামা ভারত বর্ষে আসেন ১৪৯৮ সালে। তিনি ভারতে আসার জলপথ আবিষ্কার করেন।
৩. পর্তুগীজদের পর ওলন্দাজরা ভারতে আসেন। ১৬০২ সালে ওলন্দাজগণ ভারতে আসেন ‘ইউনাইটেড ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানী’ গঠন করে। এদের প্রধান ঘাঁটি ছিল মাদ্রাজের নাগপট্টম ও বঙ্গদেশের চুঁচূড়া।
৪. ১৬০০ সালে ইংরেজ বণিকগণ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানী গঠন করে। ১৬০৮ সালে সুরাটে প্রথম কুঠি স্থাপন করে মুঘল সম্রাট জাহাঙ্গীরের অনুমতিক্রমে। ১৭০০ সালে ফোর্ট উইলিয়াম দুর্গ নির্মাণ করেন। ১৬৬৮ সালে ঢাকায় প্রথম ইংরেজ কুঠি স্থাপিত হয়।
৫. দিনেমারগণ ‘ডেনিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানী’ গঠন করে ১৬১৬ খ্রীস্টব্দে।
৬. ১৬৯০ সালে জব চার্নক সুতানুটি গ্রামে বর্তমান কলিকাতা নগরীর প্রতিষ্ঠা করেন।
৭. ১৬৬৪ সালে ফরাসী সম্রাট চর্তুদশ লুই রাজত্বকালে ‘ফরাসী ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানী’ গঠিত হয়। ১৬৬৮ সালে সুরাটে একটি বাণিজ্য কুঠি স্থাপন করে।
৮. কলকাতা ফোর্ট উইলিয়াম দুর্গে অন্ধকূপ হত্যা সংঘটিত হয় ১৭৫৬ সালে।
৯. এছাড়া সুইডিশ, অস্ট্রিয়ানরা ভারতবর্ষে আসেন বাণিজ্যের উদ্দেশ্যে।